LONG LIVE NOVEMBER REVOLUTION

november-revolution

১৭৮৯ সালের ফরাসী বিপ্লব নিঃসন্দেহে ফোকাস অফ রিভলিউশন। সামন্ত ও রাজতন্ত্রের মধ্যযুগীয় বর্বরতা থেকে উত্তোরণ ঘটিয়েছিল গণতান্ত্রিক চেতনায়। ঘোষিত হয়েছিল সাম্য মৈত্রী স্বাধীনতার বাণী। বাস্তিল দুর্গ ভেঙে মুক্ত করেছিল অত্যাচারিত মানুষদের। এর আগে পরে অনেক বিদ্রোহ বিপ্লব হয়েছে কিন্তু ১৯১৭ সালের নভেম্বর বিপ্লব (সোভিয়েত সমাজতান্ত্রিক বিপ্লব) একেবারেই আলাদা, রবীন্দ্রনাথের ভাষায় “মূলেই প্রভেদ।” আগেকার বিপ্লব গুলিতে এক শোষক শ্রেণীর বদলে অন্য এক শোষক শ্রেণীর রাজত্ব কায়েম হয়েছিল। কিন্তু নভেম্বর বিপ্লব নিয়ে এল শোষিত মেহনতী মানুষের মুক্তি, তাঁদের শাসন। নেতৃত্বে শ্রমিক শ্রেণী। দেশীবিদেশী ষড়যন্ত্রী ও ষ্ট্যালিন পরবর্তী কমিউনিষ্ট পার্টির নেতাদের অপদার্থতার জন্য সোভিয়েতের পতন ঘটে গেল। কিন্তু তার জন্য সোভিয়েত সমাজতান্ত্রিক রাষ্ট্রের মহত্তম কীর্তিগুলি মিথ্যে হায়ে যাবে না। এই রাষ্ট্রই ঘৃণ্য ও বিশ্বত্রাস হিটলারকে পরাস্ত করে গোটা পৃথিবীকে ফ্যাসিজিমের হাত থেকে রক্ষা করেছিল। এই রাষ্ট্রই দেশের প্রতিটি মানুষের অন্ন বস্ত্র শিক্ষা চিকিৎসা ও বাসস্থানকে সুনিশ্চিত করেছিল। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে এতটাই উচ্চতায় উঠেছিল যে এই দেশটিই প্রথম মহাকাশে মানুষ প্রেরণ করার কৃতিত্ব অর্জন করেছিল। মাত্র কয়েক বছরের মধ্যে একটা পিছিয়ে পড়া দেশ বিশ্বের অন্যতম শক্তিধর দেশ হিসাবে পরিগণিত হয়েছিল।